Home 1 চলিত খবর 1 দিনরাত ব্যাস্ততার মাঝে চট্রগ্রামের প্রতিমার শিল্পীরা

দিনরাত ব্যাস্ততার মাঝে চট্রগ্রামের প্রতিমার শিল্পীরা

চট্টগ্রাম অফিস :: আগামী ১৯শে সেপ্টেম্বর শুভ মহালয়া।আর এই মহালয়ার দিন থেকেই শুরু
র্দূগা পূজার দিনক্ষন।মহালয়ার সাতদিন পরেই র্দূগা পূজা। ২৫শে সেপ্টেম্বর দেবীর বোধনের মাধ্যমে শুরু হবে হিন্দু সম্প্রদায়ের প্রধান র্ধমীয় এই উথসব।আর এই র্দূদপ পূজাকে সামনে রেখে দিন রাত ব্যস্ত সময় পার করছেন চট্রগ্রামের মৃথ শির্পীরা।কারোই যেন দম ফেলার সময় নেই।কারন সময় খুবই কম।এই বছর সেপ্টেম্বর মাসের শেষের দিকেই শুরু হচ্ছে র্দূগা পূজা।গত বছর অক্টোবর মাসের প্রথম সপ্তাহেই শুরু হয়ে ছিল র্দুগা পূজা।আর এই বছর বৃষ্টির কারনে প্রতিমা তৈরী ও শুকানোর কাজে সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে।তাই শিল্ফীরা দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছে।প্রতিটি কারখানাতেই প্রায় ৮-৯ জন কারিগর সমান তালে কাজ করে যাচ্ছে।আজ নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে দেখা যাই,কেউ মাটির গহনা তৈরী করছেন,কেউ কেউ মাটির প্রলেফ দিচ্ছেন,কেউ করছেন ফিনিশিং,কেউ দিচ্ছে রং। আর এভাবেই বিভিন্ন জন বিভিন্ন কাজ নিয়ে ব্যস্ত।প্রতিটি কারখানাতেই ৩০-৩৫টি প্রতিমার র্অডার নিয়েছেন।আর কারখানার বাইরে বিভিন্ন জায়গায় প্রতিমা তৈরীর র্অডার নিয়েছেন কেউ কেউ। প্রতিমা র্নিমানের কাজ প্রায় ৮০ ভাগ শেষ।এখন শুধু রংয়ের কাজ বাকী।আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই দেওয়া হবে সাদা রং।এরপর মূল রং।পূজা শুরুর কয়েকদিন আগেই সর্ম্পুন্ন ভাবে সাজিয়ে তৈরী করা হবে প্রতিমা গুলো।
নটরাজ শিল্পালয়ের সত্বাধীকারী বাসুদেব পাল জানান,জায়গার স্বল্পতার কারনে এবার প্রতিমার র্অডার কম নিয়েছি।শিল্পী তপন পাল জানান,এবার ৩৪টি প্রতিমা তৈরী করেছি।এর মধ্যে সব গুলো র্অডার হয়ে গেছে।প্রতিদিন কারখানায় আমি সহ ৯জন লোক দিন রাত কাজ করে যাচ্ছি।তবে পারিশ্রমিক অনুযায়ী দাম পাচ্ছিনা।কারন,কারিগর,জায়গা ভাডা ও প্রতিমা তৈরীর উপকরনের দাম এখন বেশী।তবুও প্রতিমা সব গুলো র্অডার হয়ে যাওয়ায় আমি খুশী।কারন একটি প্রতিমা থেকে গেলে ২০-২৫ হাজার টাকা ক্ষতির সম্মুক্ষিন হতে হবে।
লোকনাথ শিল্পালয়ের দায়িত্বে থাকা জয়দেব ও বিপ্লব পাল জানান,এবার তারা ২৯টি প্রতিমা তৈরী করেছে।তার মধ্যে ২৫টি বিক্রয় হয়ে গেছে।তাছাড়া নগরীর বাইরে গিয়েও তারা ৪টি প্রতিমা তৈরীর কাজ করছে।সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকায় তারা প্রতিমা তৈরী করছে নোয়াখালীতে।আর নগরীর ২টি পূজা মস্ডপের জন্য১০ফুট ও ১২ ফুট এর ২টি প্রতিমা তৈরী করা হয়েছে।তবে সনাতনী প্রতিমার চেয়ে ওরিয়েনাটাল প্রতিমার চাহিদা বেশী।তবে আমরা সনাতনী প্রতিমা বেশী তৈরী করেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*